বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের উপন্যাসমূহ:

ছড়ায় বাংলা সাহিত্য | (সহজে মনে রাখতে ‘কৃষ্ণ আইলো রাধার কুন্ডে’ গানটির মত করে গাইতে হবে) 🙂
‘Rajmohon’s wife দুর্গেশনন্দিনী আনন্দে বলে,
কৃষ্ণ আইল দেবীর কুন্ডে, মৃণা রাজা ইন্দিরা
সীতার বিষেতে, রাধা চন্দ্রশেখর রজনীকা।’

এবার গানের সাথে মিলিয়ে নেন :
Rajmohon’s wife (১ম উপন্যাস)
দুর্গেশনন্দিনী (বাংলায় রচিত ১ম উপন্যাস)
আনন্দে = আনন্দমঠ
কৃষ্ণ = কৃষ্ণকান্তের উইল (সর্বশেষ্ঠ উপন্যাস)
দেবীর = দেবী চৌধুরাণী
কুন্ডে = কপালকুন্ডলা (বাংলা সাহিত্যের ১ম রোমান্টিক উপন্যাস)
মৃণা = মৃণালিনী
রাজা = রাজসিংহ
ইন্দিরা = ইন্দিরা
সীতার = সীতারাম
বিষ = বিষবৃক্ষ
রাধা = রাধারানী
চন্দ্রশেখর = চন্দ্রশেখর
রজনীকা = রজনী
NB : গানের সাথে মিলিয়ে নেন।

বঙ্কিম এর ত্রয়ী উপন্যাসমূহের নাম : (৩৪ বিসিএস লিখিত প্রশ্ন):

মনে রাখার ছন্দ :
“আনন্দে আছে সীতা দেবী”
আনন্দে = আনন্দমঠ
সীতা = সীতারাম
দেবী = দেবী চৌধুরাণী

বৈষ্ণব পদাবলির ৫ জন কবির নাম : (বিগত লিখিত প্রশ্ন ):

মনে রাখার ছন্দ:
“বলে বিদ্যা চন্ডী, জ্ঞান গোবিন্দ রবি”
বলে = বলরাম,
বিদ্যা = বিদ্যাপতি,
চন্ডী = চন্ডীদাস,
জ্ঞান = জ্ঞানদাস,
গোবিন্দ = গোবিন্দদাস,
রবি =রবীন্দ্রনাথ।

সাহিত্য মনে রাখার পরবর্তী ছড়াগুলো বইয়ের সাথে মিলিয়ে নিবেন …..

জসিম উদদীন (১৯০৩-১৯৭৬):

নাটক :
পদ্মাপারের বেদের মেয়ে ও পল্লীবধূ মধুমালা গ্রামের মায়া ছেড়ে আসমান সিংহ নাটক দেখে।

কাব্য :
রূপবতী সখিনা বালুচর মাঠের রাখালী হাসুর এক পয়সা বাঁশি শুনতে না পারায় ধানক্ষেতে মাটির কান্না কেঁদে সোজন বাদিয়ার ঘাটে গেল।

 কাজী নজরুল ইসলাম : (১৮৯৯-১৯৭৬):

উপন্যাস :
বাধনহারা কুহেলিকা মৃত্যুক্ষুধায় অস্থির। (৩৬ প্রিলি = প্রিলির পূর্বেই এটি পোস্ট করেছিলাম)

গল্প :
শিউলিমালা কে পদ্মগোখরা ব্যথা দিলে রিক্তের বেদনায় জিনের বাদশায় পরিণত হয়।

নাটক :
আলেয়া ও মধুমালা ঝিলিমিলি নাটক থেকে দেখে পুতুলের বিয়েতে গেল।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর :

রবী ঠাকুরের ৫ টি উপন্যাসের নাম লিখুন (বিগত লিখিত প্রশ্ন )

মনে রাখার সহজ উপায় (রবীন্দ্রনাথের ১২ টি উপন্যাস)
“চার অধ্যায় মুখস্থ করা গোরা,
দুইবোন রাজর্ষি ও মালঞ্চের সাথে শেষ বারের মত যোগাযোগ করতে গেলে,
চতুর করুণা ঘরের বাহিরে বউ হাটে নৌকা ডুবিয়ে দেয়।”

মানিক বন্দোপাধ্যায় :

উপন্যাস :
মাঝি জননী পুতল নাচে। | ছড়ায় বাংলা সাহিত্য

আরো পড়ুন: