প্রশ্নঃ প্রাচীন বাংলার রীতিতে মধ্যম পুরুষের অনুজ্ঞায় ক্রিয়ার সঙ্গে কি যোগ করার নিয়ম ছিল ?
ক. অ
খ. ও
গ. হ
ঘ. ল
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ অনুজ্ঞা কোন কোন কালে ব্যবহৃত হয় ?
ক. বর্তমান ও ভবিষ্যৎ কালে
খ. ভবিষ্যৎ ও অতীতকালে
গ. অতীত ও বর্তমান কালে
ঘ. ভবিষ্যৎ কালে
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ আমার কাজটা অবশ্যই করিও – এই বাক্যের অনুজ্ঞা কোন অর্থ প্রকাশক ?
ক. প্রার্থনা
খ. আদেশ
গ. অনুরোধ
ঘ. উপদেশ
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ ‘তুমি যদি যেতে ভাল হত’-বাক্যটিতে ‘যেতে’ শব্দটি ক্রিয়ার কোন কাল?
ক. সাধারণ অতীত
খ. ঘটমান অতীত
গ. পুরাঘটিত অতীত
ঘ. নিত্যবৃত্ত অতীত
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ অনুজ্ঞা পদ কোন পদের রূপ ?
ক. নাম পুরুষের
খ. বিশেষণ
গ. অব্যয়
ঘ. ক্রিয়া
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ উত্তম পুরুষে অনুজ্ঞা পদ হতে পারে না, কারণ ?
ক. প্রত্যক্ষ বলে
খ. পরোক্ষ বলে
গ. কেউ নিজেকে আদেশ করতে পারে না
ঘ. কোনটিই নয়
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ কোন পুরুষে অনুজ্ঞা হয় না ?
ক. মধ্যম পুরুষে
খ. উত্তম পুরুষ
গ. নাম পুরুষ
ঘ. খ

উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ নির্দেশক ভাবের সাধারণ বর্তমান কালের সম্ভ্রমাত্নক মধ্যম পুরুষের বিভক্তি কি ?
ক. উক
খ. এন
গ. ও
ঘ. ইস্‌
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ নাম পুরুষের অনুজ্ঞা পদ হতে পারে না, কারন –
ক. প্রত্যক্ষ বলে
খ. অপ্রত্যক্ষ বলে
গ. নিজেকে আদেশ করতে পারে না বলে
ঘ. তুচ্ছার্থক বলে
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ “এবার আমি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছি”-বাক্যটির কাল নির্ণয় কর।
ক. সাধারণ বর্তমান
খ. সাধারণ অতীত
গ. নিত্যবৃত্ত বর্তমান
ঘ. পুরাগটিত বর্তমান
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ কোন ক্রিয়াটি ভবিষ্যৎকালের অনুজ্ঞায় সম্ভাবনা বুঝাচ্ছে ?
ক. রোগ হলে ওষুধ খাবে
খ. সদা সত্য কথা বলবে
গ. চেষ্টা কর, বুঝতে পারবে
ঘ. কাল এসো
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ “বালকেরা স্কুলে যাচ্ছে” বাক্যটি কোন ধরনের বর্তমান কাল নির্দেশ করে?
ক. সাধারণ বর্তমান
খ. ঘটমান বর্তমান
গ. নিত্য বর্তমান
ঘ. বর্তমান অনুজ্ঞা
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ ভিক্ষে মেগে খায় -এ বাক্যের ‘মাগ’ ধাতুটির মূল কোনটি ?
ক. মাগ্‌
খ. মাঙ্‌
গ. মাব্‌
ঘ. মাঘ
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ সদা সত্য কথা বলবো – এটি কোন অনুজ্ঞার উদাহরণ ?
ক. বর্তমান কালের অনুজ্ঞা
খ. অতীয় কালের অনুজ্ঞা
গ. ভবিষ্যৎ কালের অনুজ্ঞা
ঘ. অতীত – বর্তমান কালের অনুজ্ঞা
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ কড়া রোদে ঘোরাফেরা করিসনে -এই বাক্যে অনুজ্ঞা কি অর্থ প্রকাশ করে ?
ক. অনুরোধ
খ. উপদেশ
গ. আদেশ
ঘ. নিষেধ
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ আদেশ, উপদেশ, অনুরোধ, অনুমতি, প্রার্থনা, অনুনয় প্রভৃতি বর্তমান ও ভবিষ্যৎ কালে মধ্যম পুরুষে ক্রিয়া পদের যে রূপ হয়, তাকে কি বলে ?
ক. অনুজ্ঞা
খ. বাচ্য
গ. বাক্য, অলংকার
ঘ. উক্তি
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ কোন পুরুশের তুচ্ছার্থক বা ঘনিষ্ঠার্থক সর্বনামের অনুজ্ঞায় কোনো বিভক্তি যুক্ত হয় না ?
ক. উত্তম পুরুষে
খ. নাম পুরুষে
গ. মধ্যম পুরুষে
ঘ. সবগুলো
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ প্রাচীন বাংলা অনুজ্ঞায় ক্রিয়ার শেষে ‘হ’ বর্তমানে কিসে রুপান্তরিত হয়েছে ?
ক. অ এবং ও
খ. অ এবং হ
গ. হ ও ল
ঘ. রে আবগ
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ কোন কাল নির্ণয় করুন: সে স্কুলে গিয়েছে।’
ক. সাধারণ বর্তমান
খ. পুরাঘটিত বর্তমান
গ. ঘটমান বর্তমান
ঘ. বর্তমান অনুজ্ঞা
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ রোগ হলে ওষুধ খাবে – এই বাক্যে অনুজ্ঞা কি অর্থ প্রকাশ করে ?
ক. আদেশ
খ. নির্দেশ
গ. বিধান
ঘ. উপদেশ
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ কোন পুরুশের তুচ্ছার্থক বা ঘনিষ্ঠার্থক সর্বনামের অনুজ্ঞায় কোনো বিভক্তি যুক্ত হয় না ?
ক. উত্তম পুরুষে
খ. নাম পুরুষে
গ. মধ্যম পুরুষে
ঘ. সবগুলো
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ ভিক্ষে মেগে খায় -এ বাক্যের ‘মাগ’ ধাতুটি কোন ভাষা থেকে আগত ?
ক. ফারসি
খ. বাংলা
গ. হিন্দি
ঘ. ইংরেজি
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ ধাতু বা ক্রিয়ামূল চেনার অন্যতম উপায় কোনটি ?
ক. বর্তমান কালের অনুজ্ঞায় তুচ্ছার্থক মধ্যমপুরুষের ক্রিয়ার রূপ লক্ষ্য করা যায়
খ. বর্তমান কালের অনুজ্ঞায় তুচ্ছার্থক উত্তম পুরুষের ক্রিয়ার রূপ লক্ষ্য করা যায়
গ. ক্রিয়ার মূল দেখে
ঘ. কোনটিই নয়
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ সম্ভ্রমাত্নক মধ্যম পুরুষের অনুজ্ঞা পদের বিভক্তি কোনটি ?
ক. ইবে
খ. অ
গ. উন
ঘ. ইস্‌
উত্তরঃ গ

ক্রিয়ার ভাব:

প্রশ্নঃ যে ক্রিয়া দ্বারা বাক্যের পরিসমাপ্তি স্থাপিত হয়, তাকে কোন ক্রিয়া বলে ?
ক. সকর্মক
খ. অকর্মক
গ. সমাপিকা
ঘ. অসমাপিকা
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ ক্রিয়াপদের মূল অংশকে বলা হয় —-
ক. বিভক্তি
খ. ধাতু
গ. প্রত্যয়
ঘ. কৃৎ
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ বাক্যের ক্রিয়া ও কর্ম পদ একই ধাতু থেকে গঠিত হলে তাকে কি বলে ?
ক. সমধাতুজ কর্ম
খ. মুখ্য কর্ম
গ. গৌণ কর্ম
ঘ. ক্রিয়া
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ ঘটনাটা শুনে রাখ – এ বাক্যেটি কোন ক্রিয়ার উদাহরণ ?
ক. যৌগিক ক্রিয়া
খ. মৌলিক ক্রিয়া
গ. সমাপিকা ক্রিয়া
ঘ. অসমাপিকা ক্রিয়া
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ বস্তুবাচক কর্মপদটিকে বলে –
ক. গৌণ কর্ম
খ. মুখ্য কর্ম
গ. সমধাতু কো
ঘ. দ্বিকর্মক
উত্তরঃ খ

আরো পড়ুন: