প্রশ্নঃ কর্তৃবাচ্যের কর্মে কোন বিভক্তি হয়?
ক. ৭মী
খ. ২য়া, ৬ষ্ঠী বা শূণ্য বিভক্তি
গ. ৩য়া
ঘ. ৫মী
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ এবার একটি গান করা হোক- ভাববাচ্যটির কর্তৃবাচ্য কি হবে?
ক. এবার একটি গান করতে থাক
খ. এবার তোমা কর্তৃক একটি গান শুনানো হোক
গ. এবার একটি গান কর
ঘ. একটা গান গাও না
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ ছাত্ররা অঙ্ক করছে- বাক্যটি কোন ধরনের বাচ্যের উদাহরণ?
ক. কর্মবাচ্য
খ. ভাববাচ্য
গ. কর্তৃবাচ্য
ঘ. কোনটিই নয়
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ মাতা কর্তৃক শিশু শিক্ষা পায়- কোন বাচ্যের উদাহরণ?
ক. কর্তৃবাচ্য
খ. ভাববাচ্য
গ. কর্মবাচ্য
ঘ. কর্ম-কর্তৃবাচ্য
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ কর্তৃবাচ্যে কর্তা সবসময় কোন বিভক্তির হয়?
ক. দ্বিতীয়া
খ. ষষ্ঠী
গ. সপ্তমী
ঘ. প্রথমা বা শূণ্য
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ ‘চাঁদ দেখা যাচ্ছে’ এই বাক্যে কোন বাচ্যের প্রয়োগ ঘটেছে?
ক. কর্তৃবাচ্য
খ. কর্মবাচ্য
গ. ভাববাচ্য
ঘ. কর্মকর্তৃবাচ্য
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ যে বাচ্যের কর্ম থাকে না এবং বাক্যে ক্রিয়ার অর্থই প্রধানরূপে প্রতীয়মান হয়, তাকে কোন বাচ্য বলে?
ক. কর্ম-কর্তৃবাচ্য
খ. কর্মবাচ্য
গ. ভাববাচ্য
ঘ. কর্তৃবাচ্য
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ যখন কর্মই কর্তৃরূপে বাচ্য হয় তখন তাকে কোন বাচ্য বলে?
ক. কর্মবাচ্য
খ. কর্তৃবাচ্য
গ. কর্ম কর্তৃবাচ্য
ঘ. ভাববাচ্য
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ ভাববাচ্যের ক্রিয়া সর্বদাই কি হয়?
ক. নাম পুরুষের ক্রিয়া
খ. কর্তার ক্রিয়া
গ. কর্মের ক্রিয়া
ঘ. ভাবের ক্রিয়া
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ যে বাক্যে কর্মের সাথে ক্রিয়ার সমন্বয় প্রধানভাবে প্রকাশিত হয় তাকে কোন বাচ্য বলে?
ক. কর্তৃবাচ্য
খ. কর্মবাচ্য
গ. ভাববাচ্য
ঘ. কোনটিই না
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ ‘এবার ট্রেনে ওঠা যাক’ বাক্যটিতে কি দ্বারা ভাববাচ্য গঠিত হয়েছে?
ক. ক্রিয়া দ্বারা
খ. কর্তা দ্বারা
গ. কর্ম দ্বারা
ঘ. পুরুষ দ্বারা
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ যে বাক্যে কর্মপদই কর্তৃস্থানীয় হয়ে বাক্য গঠন করে তাকে কি বলে?
ক. কর্তৃবাচ্য
খ. কর্মবাচ্য
গ. ভাববাচ্য
ঘ. কর্ম-কর্তৃবাচ্য
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ ভাববাচ্যের ক্রিয়া–
ক. উত্তম পুরুষ
খ. মধ্যম পুরুষ
গ. নামপুরুষ
ঘ. প্রত্যক্ষ উক্তির
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ চোরটা ধরা পড়েছে- বাক্যটি কোন বাচ্যের উদাহরণ?
ক. কর্মবাচ্য
খ. কর্তৃবাচ্য
গ. ভাববাচ্য
ঘ. কোনটিই নয়
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ নিচের কোন বাচ্যের কোন বাচ্যান্তর হয় না?
ক. কর্তৃ বাচ্যের
খ. ভাব বাচ্যের
গ. কর্ম বাচ্যের
ঘ. কর্ম কর্তৃবাচ্যের
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ তুমি বেড়ালে। এ বাক্যের ভাববাচ্যের রূপান্তর-
ক. তোমার বেড়ানো হলো
খ. তোমার বেড়ানো শেষ
গ. তুমি বেড়িয়ে এলে
ঘ. তোমা কর্তৃক বেড়ানো হলো
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ বাচ্য ব্যাকরণের কোন অংশে আলোচিত হয়?
ক. ধ্বনিতত্ত্বে
খ. রূপতত্ত্বে
গ. বাক্যতত্ত্বে
ঘ. অর্থতত্ত্বে
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ “আমার বই পড়া হয়েছে” বাক্যটির কর্তৃবাচ্য রূপ হচ্ছে-
ক. আমি বই পড়ছি
খ. আমরা বই পড়েছি
গ. আমি বই পড়তে যাচ্ছি
ঘ. আমি বই পড়েছি
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ বাক্যের বিভিন্ন প্রকাশভঙ্গিকে কি বলা হয়?
ক. বাগধারা
খ. বাচ্য
গ. উক্তি
ঘ. প্রবাদ
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ কর্তৃবাচ্যের ক্রিয়া অকর্মক হলে সেই বাক্যের কি হয় না?
ক. কর্মবাচ্য
খ. কর্তৃবাচ্য
গ. কর্মকর্তৃবাচ্য
ঘ. ভাববাচ্য
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ কর্তৃবাচ্যের ক্রিয়াপদ সর্বদাই কার অনুসারী হয়?
ক. কর্মের
খ. ভাবের
গ. কর্তার
ঘ. ক্রিয়ার
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ ‘আমাকে এখন যেতে হবে’ বাক্যটি কোন বাচ্যের উদাহরণ?
ক. ভাববাচ্য
খ. কর্মবাচ্য
গ. কর্তৃবাচ্য
ঘ. ক ও খ উভয়ই
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ এবার একটি গান হোক- কোন বাচ্যের উদাহরণ?
ক. কর্তৃবাচ্য
খ. কর্মবাচ্য
গ. ভাববাচ্য
ঘ. কর্ম-কর্তৃবাচ্য
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ ভাববাচ্যের বাক্যকে কর্তৃবাচ্যে পরিণত করতে হলে ক্রিয়া কার অনুসারী হয়?
ক. কর্মের
খ. ভাবের
গ. ক্রিয়ার
ঘ. কর্তার
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ কোন বাচ্যের ক্রিয়া অকর্মক হলে তাকে কোন বাচ্য বলে?
ক. কর্মবাচ্য
খ. কর্তৃবাচ্য
গ. ভাববাচ্য
ঘ. কর্ম-কর্তৃবাচ্য
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ যে বাক্যে সাধারণত ক্রিয়ার অর্থই বিশেষ ভাবে ব্যক্ত হয় তাকে কোন বাচ্য বলে?
ক. কর্মবাচ্য
খ. কর্তৃবাচ্য
গ. ভাববাচ্য
ঘ. কোনটিই নয়
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ কেবল ভাববাচ্যে কোন প্রত্যয় যুক্ত হয়?
ক. অ-প্রত্যয়
খ. অনাপ্রত্যয়
গ. অন-প্রত্যয়
ঘ. আনপ্রত্যয়
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ বাচ্য কত প্রকার?
ক. ২ প্রকার
খ. ৩ প্রকার
গ. ৪ প্রকার
ঘ. ৫ প্রকার
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ ভাববাচ্যের উদাহরণ-
ক. আমি আর গেলাম না
খ. এবার মাছ ধরা যাক
গ. আম বোধ হয় পেকেছে
ঘ. কুকুর লোকটিকে কামড়াল
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ ‘বাঁশি বাজে ওই দূরে’– কোন বাচ্যের উদাহরণ?
ক. ভাববাচ্যের
খ. কর্তৃবাচ্যের
গ. কর্ম-কর্তৃবাচ্যের
ঘ. কর্মবাচ্যের
উত্তরঃ গ

আরো পড়ুন: