প্রশ্নঃ একটি অপূর্ণ বাক্যের পরে অন্য একটি বাক্যের অবতারণা করতে হলে কোন চিহ্ন ব্যবহৃত হয়?
ক. কোলন
খ. কোলন ড্যাস
গ. হাইফেন
ঘ. ইলেক
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ নিচের কোনটিতে বিরামচিহ্ন যথাযথভাবে ব্যবহৃত হয়নি?
ক. ডিসেম্বর ১৬, ১৯৭১
খ. ২৬ মার্চ, ১৯৭১
গ. ঢাকা, ২১ ফেব্রুয়ারি ১৯৫২
ঘ. পয়লা বৈশাখ, চৌদ্দশত সাত
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ পরবর্তী শব্দ থেকে উৎপত্তি বুঝাতে কোন চিহ্ন বসে?
ক. >
খ. <
গ. √
ঘ. <-
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ প্রাচীন যুগে কয় দাঁড়ির প্রচলন ছিল?
ক. এক ও দুই দাঁড়ি
খ. এক দাঁড়ি
গ. দুই দাঁড়ি
ঘ. কোনটিই নয়
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ বাক্যে “কমা” অপেক্ষা বেশি বিরতির প্রয়োজন কি বসে?
ক. সেমিকোলন
খ. কোলন
গ. ঙ্কোলন ড্যাস
ঘ. হাইফেন
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ জিজ্ঞাসা চিহ্নের বিরতিকাল কতক্ষণ?
ক. ১ বলার দ্বিগুণ সময়
খ. ১ উচ্চারণে যে সময় লাগে
গ. ১ মিনিট
ঘ. ১ সেকেন্ড
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ নামের পূর্বে ডিগ্রিসূচক পরিচয় সংযোজিত হলে সেগুলোর প্রত্যেকটির পরে কোন বিরাম চিহ্ন বসে?
ক. ড্যাস
খ. কোলন
গ. কমা
ঘ. সেমিকোলন
উত্তরঃ গ

লিঙ্গ:

প্রশ্নঃ মৎস্য ও মনুষ এর সঠিক স্ত্রীবাচক শব্দ কোনটি ?
ক. মৎসী, মনুষী
খ. মৎসা, মনুষ্যা
গ. মৎসিনী, মানষী
ঘ. কোনটিই নয়
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ যেসব পুরুষবাচক মব্দের শেষে ‘তা’ রয়েছে, স্ত্রী বাচকতা বুঝাতে সে সব শব্দে হয়-
ক. ‘ঈ’
খ. ‘ত্রী’
গ. ‘আনী’
ঘ. ‘হীন’
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ নিচের কোনটি নিত্য পুংলিঙ্গের উদাহরণ ?
ক. এয়ো
খ. বুড়া
গ. জনক
ঘ. পতি
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ তৎসম পুরুষবাচক বিশেষ্যের সঙ্গে কোন পদ যুক্ত হয় ?
ক. পুরুষবাচক বিশেষণ
খ. স্ত্রীবাচক বিশেষণ
গ. স্ত্রীবাচক বিশেষ্য
ঘ. পুরুষবাচক বিশেষ্য
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ লিঙ্গ কত প্রকার ?
ক. ৬ প্রকার
খ. ৭ প্রকার
গ. ৪ প্রকার
ঘ. ৫ প্রকার
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ নিত্য স্ত্রীবাচক শব্দ বলতে কি বোঝায় ?
ক. স্ত্রীবাচক শব্দকে
খ. ঈ প্রত্যয়ন্ত শব্দকে
গ. যে শব্দের পুরুষবাচক শব্দ নেই
ঘ. কোনটিই নয়
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ বাংলা ব্যাকরণ কোন পদে সংস্কৃতের লিঙ্গের নিয়ম মানে না ?
ক. বিশেষ্য
খ. বিশেষণ
গ. অব্যয়
ঘ. ক্রিয়া
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ ‘বিধবা’ শব্দের বিপরীত লিঙ্গ কি–
ক. বহুপত্নীক
খ. সধবা
গ. বিপত্নীক
ঘ. অধবা
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ কোনটি জাতি অর্থে স্ত্রীলিঙ্গ ?
ক. নাতিনি
খ. নাতবৌ
গ. সালাজ
ঘ. দিদি
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ কোনটির আগে স্ত্রীবাচক শব্দ প্রয়োগ করে লিঙ্গান্তর করা হয় ?
ক. কামার
খ. গোলাম
গ. শিল্পী
ঘ. কর্তা
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ স্ত্রী ও পুরুষ কিছুই বুঝায় না যে শব্দে তাকে কোন লিঙ্গ বলে?
ক. পুংলিঙ্গ
খ. স্ত্রীলিঙ্গ
গ. ক্লীবলিঙ্গ
ঘ. উভয়লিঙ্গ
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ যেসব শব্দের দ্বারা স্ত্রী, পুরুষ, প্রাণী বা জড় পদার্থ বুঝায়, তাদেরকে বলে –
ক. বচন
খ. লিঙ্গ
গ. প্রবাদ
ঘ. বাচ্য
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ খাঁটি বাংলা স্ত্রীবাচক শব্দে বিশেষণটি কেমন হয় ?
ক. স্ত্রীবাচক
খ. পুরুষবাচক
গ. নিত্য পুরুষবাচক
ঘ. নিত্য স্ত্রীবাচক
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ পুরুষ-বাচক শব্দের শেষে ঈ থাকলে স্ত্রী-বাচক শব্দে নী হয় এবং আগের ঈ, ই হয়। এর উদাহরণ?
ক. নাপিতানী
খ. চাকরানী
গ. মালিনী
ঘ. ডাক্তারনী
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ ‘মৎস্য’ শব্দের স্ত্রীবাচক শব্দ কোনটি?
ক. মৎসা
খ. মৎসী
গ. মসিনী
ঘ. মৎসিনী
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ ‘মাতুলানী’ শব্দটি কোন স্ত্রীবাচক প্রত্যয় যোগে গঠিত হয়েছে?
ক. আনী
খ. নী
গ. ঈ
ঘ. লানী
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ শুক শব্দটির বিপরীত লিঙ্গ কোনটি ?
ক. শারী
খ. সারী
গ. সাড়ি
ঘ. শায়ী
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ নারীকে সম্বোধনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে-
ক. কল্যাণীয়েষু
খ. সুচরিতেষু
গ. শ্রদ্ধাস্পাদাসু
ঘ. প্রীতিভোজনেষু
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ কোনটিতে পুরুষবাচক শব্দের আগে স্ত্রীবাচক শব্দ যোগে স্ত্রীবাচক শব্দ গঠিত হয়েছে?
ক. স্ত্রীলোক
খ. মাদি ঘোড়া
গ. মহিলা পুলিশ
ঘ. বকনা বাছুর
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ ‘কুলি’ শব্দের স্ত্রীবাচক শব্দ কোনটি?
ক. কামিন
খ. কামিনী
গ. কুলিনী
ঘ. কুলিনা
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ নারীকে সম্বোধনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে ?
ক. কল্যাণীয়েষু
খ. সুচরিতেসু
গ. শ্রদ্ধাস্পদ
ঘ. প্রীতিভাজনেষু
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ ‘মায়াবী শব্দটি কোন লিঙ্গ?
ক. পুংলিঙ্গ
খ. স্ত্রীলিঙ্গ
গ. ক্লীবলিঙ্গ
ঘ. উভয়লিঙ্গ
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ পুরুষ ও স্ত্রী কোনটিই বোঝায় না কোন লিঙ্গ দ্বারা ?
ক. পুং লিঙ্গ
খ. উভয় লিঙ্গ
গ. ক্লীব লিঙ্গ
ঘ. স্ত্রী লিঙ্গ
উত্তরঃ গ

আরো পড়ুন: