প্রশ্নঃ চর্যার ধর্ম নিয়ে প্রথম আলোচনা করেন–
ক. ডক্টর সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায়
খ. ডক্টর সুকুমার সেন
গ. ডক্টর মুহম্মদ শহীদুল্লাহ
ঘ. হরপ্রাসাদ শাস্ত্রী
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ বাংলা ভাষার আদি নিদর্শন চর্যাপদ আবিষ্কৃত হয় কত সালে?
ক. ২০০৭ সালে
খ. ১৯০৭ সালে
গ. ১৯১৬ সালে
ঘ. ১৯০৯ সালে
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ চর্যাপদের কোন পদটি খণ্ডিত আকারে পাওয়া যায়?
ক. ১০ নং পদ
খ. ১৬ নং পদ
গ. ১৮ নং পদ
ঘ. ২৩ নং পদ
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যের আদি কবি কে? অথবা, চর্যাপদের আদি কবি কে?
ক. কাহ্নপা
খ. চেগুনপা
গ. লুইপা
ঘ. ভূসুকুপা
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ নিচের কোনটি সহোদর ভাষাগোষ্ঠী?
ক. বাংলা ও উর্দু
খ. বাংলা ও অসমিয়া
গ. বাংলা ও হিন্দি
ঘ. বাংলা ও সংস্কৃত
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ চর্যা শব্দের অর্থ কি?
ক. আচরণ
খ. প্রকৃত
গ. শুদ্ধ
ঘ. আচার
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের প্রাচীন গ্রন্থ কোনটি?
ক. মহাভারত
খ. রামায়ণ
গ. বঙ্গনামা
ঘ. চর্যাপদ
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যের যুগকে কয় ভাগে ভাগ করা যায়?
ক. দু’ভাগে
খ. তিন ভাগে
গ. চার ভাগে
ঘ. পাঁচ ভাগে
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ ড. সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায় বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস কে কয়টি যুগে ভাগ করেছেন?
ক. দুটি
খ. তিনটি
গ. চারটি
ঘ. পাঁচটি
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ চর্যাপদের মূল বিষয়বস্তু কোনটি?
ক. বৌদ্ধোধর্ম প্রচার
খ. কাহিনী বর্ণনা
গ. দেহতত্ত্ব
ঘ. বৌদ্ধোধর্মের গূঢ় তত্ত্বকথা
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ কোন সাহিত্যকর্মে সান্ধ্যভাষার প্রয়োগ আছে?
ক. চর্যাপদ
খ. গীতগোবিন্দ
গ. পদার্বলী
ঘ. চৈতন্যজীবনী
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ চর্যাপদের পদগুলো রচিত–
ক. অক্ষরবৃত্ত ছন্দে
খ. মাত্রাবৃত্ত ছন্দে
গ. স্বরবৃত্ত ছন্দে
ঘ. কোনটিই নয়
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ চর্যাপদের বয়স আনুমানিক কত বছর?
ক. ৮০০ বছর
খ. ১০০০ বছর
গ. ১১০০ বছর
ঘ. ১২০০ বছর
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ বাংলা ভাষার প্রথম কবিতা সংকলন–
ক. চর্যাপদ
খ. বৈষ্ণব পদাবলী
গ. ঐতরেয় আরণ্যক
ঘ. দোহা কোষ
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ ‘আপনা মাংসে হরিণা বৈরী’- লাইনটি কোন সাহিত্যের অন্তর্ভুক্ত?
ক. লোক সাহিত্য
খ. ব্রজবুলি
গ. চর্যাপদ
ঘ. বৈষ্ণব গীতিকা
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ কোন রাজবংশের আমলে চর্যাপদ রচনা শুরু হয়?
ক. পাল
খ. সেন
গ. মুঘল
ঘ. তুর্কী
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ কোন শাসনামলে ‘চর্যাপদ’ রচিত হয়েছে বলে জানা যায়?
ক. পাল আমলে
খ. সেন আমলে
গ. খিলজী আমলে
ঘ. মুঘল আমলে
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ চর্যাপদের কবিদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি পদ কে রচনা করেন?
ক. লুইপা
খ. কাহ্নপা
গ. সরহপা
ঘ. শবরপা
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ চর্যাপদ আবিস্কৃত হয়–
ক. নেপালের রাজ-দরবার থেকে
খ. কলকাতার পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে
গ. ভুটানের রাজ-দরবার থেকে
ঘ. মুর্শিদাবাদ থেকে
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ অশুদ্ধ বাংলা ও সংস্কৃত ভাষার মিশ্রণে রচিত একটি গ্রন্থ–
ক. ডাকার্ণব
খ. চর্যাপদ
গ. দোঁহাকোষ
ঘ. সেক শুভোদয়া
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ চর্যাপদ কোন সময়ের রচনা?
ক. ৬৫০-১২০০
খ. ৬৫০-৯০০
গ. ৯৫০-১২০০
ঘ. ৭৫০-১০০০
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ চর্যাপদ কতটি পদের সংকলন?
ক. সাড়ে ছেচল্লিশ
খ. একান্ন
গ. পঞ্চাশ
ঘ. আটচল্লিশ
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ চর্যাপদের কোন পদটি আংশিক পাওয়া গেছে?
ক. ২৪ সংখ্যক
খ. ২৫ সংখ্যক
গ. ৪৮ সংখ্যক
ঘ. ২৩ সংখ্যক
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যের প্রাচীতন কবি কে? চর্যাপদের আদি কবি কে/
ক. কাহৃপা
খ. লুইপা
গ. সরহপা
ঘ. শবরপা
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যের প্রাচীন নিদর্শন কোনটি?
ক. পথের পাচালী
খ. বৈষ্ণব পদাবলী
গ. চর্যাপদ
ঘ. কোনটিই নয়
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ চর্যাপদে মোট কতটি পদ পাওয়া গেছে?
ক. একান্নটি
খ. ছেচল্লিশটি
গ. সাড়ে ছেচল্লিশটি
ঘ. পঞ্চাশটি
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ ড. হরপ্রসাদ শাস্ত্রী উদ্ধার করেন–
ক. চর্যাপদ
খ. ডাকার্ণব
গ. দোঁহাকোষ
ঘ. খ ও গ উভয়ই
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ চর্যাপদের ভাষায় কোন ভাষাটির প্রভাব দেখা যায়?
ক. অসমীয়া
খ. উড়িয়া
গ. মৈথিলী
ঘ. কোল ভাষা
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ চর্যাপদ কোন ছন্দে লেখা ?
ক. অক্ষরবৃত্ত
খ. মাত্রাবৃত্ত
গ. স্বরবৃত্ত
ঘ. অমিত্রাক্ষর
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ সবচেয়ে বেশি চর্যাপদ পাওয়া গেছে কোন কবির?
ক. লুইপা
খ. শবরপা
গ. ভুসুকুপা
ঘ. কাহুপা
উত্তরঃ ঘ

আরো পড়ুন: