প্রশ্নঃ ‘খনার বচন’ কি সংক্রান্ত?
ক. কৃষি
খ. ব্যবসা
গ. শিল্প
ঘ. রাজনীতি
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ হরপ্রসাদ শাস্ত্রী কাকে চর্যার আদি কবি মনে করেন?
ক. লুই পা
খ. কাহ্ন পা
গ. ভুসুক পা
ঘ. টেন্টন পা
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ বৌদ্ধদের কোন সম্প্রদায়ের সাধকগণ চর্যাপদ রচনা করেন?
ক. মহাযানী
খ. সহজযানী
গ. হীন যানী
ঘ. বজ্রযানী
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ প্রাচীন যুগে সমাজ জীবনে প্রভাব ছিলঃ
ক. ধর্মীয় চেতনার
খ. রূপকথার
গ. উপকথার
ঘ. কোনটিই নয়
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ চর্যাপদ আবিষ্কার হয় কোন দেশ থেকে?
ক. চীন
খ. নেপাল
গ. মিয়ানমার
ঘ. ভারত
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যের আদি নিদর্শন পাওয়া যায় কোথায়?
ক. আসামে
খ. সোনারগাঁয়ে
গ. পশ্চিমবঙ্গে
ঘ. নেপালে
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ উল্লিখিত কোন রচনাটি পুঁথি সাহিত্যের অন্তর্গত নয়?
ক. ময়মনসিংহ গীতিকা
খ. ইউসুফ জুলেখা
গ. পদ্মাবতী
ঘ. লাইলী মজনু
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যের আদি গ্রন্থ চার্যপদে’র রচনাকাল-
ক. সপ্তম থেকে দ্বাদশ
খ. অষ্টম থেকে চতুর্দশ শতক
গ. নবম থেকে চতুর্দশ শতক
ঘ. দশম থেকে চতুর্দশ শতক
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ বাংলা ভাষার প্রথম কাব্য সংকলন চর্যাপদ এর আবিষ্কারক?
ক. ডক্টর মুহম্মদ শহীদুললাহ
খ. ডক্টর সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায়
গ. হরপ্রাসাদ শাস্ত্রী
ঘ. ডক্টর সুকুমার সেন
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যের আদি নিদর্শন-
ক. শূণ্য পুরাণ
খ. নিরঞ্জনের রুষ্মা
গ. সেক শুভোদয়া
ঘ. চর্যাপদ
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ উল্লিখিতদের মধ্যে কে প্রাচীন যুগের কবি নন?
ক. কাহ্নপাদ
খ. লুইপাদ
গ. শান্তিপাদ
ঘ. রমনীপাদ
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ প্রাচীন যুগের সাহিত্যের উপকরণ হিসেবে পাওয়া যায়ঃ
ক. উপকথা
খ. রূপকথা
গ. পুঁথি
ঘ. কোনটিই নয়
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ গদ্য-পদ্য মিলিয়ে ‘সেক শুভোদয়া’ গ্রন্থে অধ্যায় আছে–
ক. ১২ টি
খ. ১৪ টি
গ. ১৭ টি
ঘ. ১৫ টি
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ কাহ্নপা বিরচিত পদের সংখ্যা কত?
ক. ২টি
খ. ৫টি
গ. ৭টি
ঘ. ১৩টি
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ চর্যাপদ প্রথম প্রকাশিত হয়–
ক. নেপাল থেকে
খ. মোহামেডান লিটালারি সোসাইটি থেকে
গ. বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ থেকে
ঘ. ওপরের কোনটিই নয়
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে প্রথম গ্রন্থ কোনটি?
ক. বেদ
খ. শূন্যপূরাণ
গ. মঙ্গল কাব্য
ঘ. চর্যাপদ
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ হরপ্রসাদ শাস্ত্রী ‘চর্যাপদ’ যে গ্রন্থে প্রকাশ করেছিলেন তার নাম হল-
ক. চর্যাপদাবলি
খ. হাজার বছরের পুরাণ বাঙ্গালা ভাষায় বৌদ্ধগান ও দোহা
গ. চর্যাচর্যবিনিশ্চয়
ঘ. চর্যাগীতিকা
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ চর্যাপদ আবিস্কৃত হয় কোথা থেকে?
ক. আরকান রাজগ্রন্থাগার থেকে
খ. বাঁকুড়ার এক গ্রহস্থের গোয়াল ঘর থেকে
গ. নেপালের রাজগ্রন্থশালা
ঘ. সুদূর চীন দেশ থেকে
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ চর্যাপদ যে বাংলা ভাষায় রচিত এটি প্রথম কে প্রমাণ করেন ?
ক. হরপ্রসাদ শাস্ত্রী
খ. সুকুমার সেন
গ. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ
ঘ. ড. সুনীতিকুমার চট্রোপাধ্যায়
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ চর্যাপদের ভাষায় কোন অঞ্চলের ভাষার নমুনা পরিলক্ষিত হয়?
ক. নেপালের প্রাচীন কথ্য ভাষা
খ. পশ্চিম বাংলার প্রাচীন কথ্য ভাষা
গ. পূর্ব বাংলার প্রাচীন কথ্য ভাষা
ঘ. ত্রিপিটকের ভাষা
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যের প্রাচীন যুগের নিদর্শন কোনটি?
ক. নিরঞ্জনের রুষ্মা
খ. দোহাকোষ
গ. গুপিচন্দ্রের সন্ন্যাস
ঘ. ময়নামতির গান
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ বৈষ্ণব পদাবলির সাথে কোন ভাষা সম্পর্কৃত
ক. সন্ধ্যাভাষা
খ. অধিভাষা
গ. ব্রজবুলি
ঘ. সংস্কৃত ভাষা
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ প্রাপ্ত চর্যাপদের পদকর্তা কয়জন?
ক. ১৯
খ. ২৩
গ. ২৫
ঘ. ২৭
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যে আধুনিক যুগের সুত্রপাত–
ক. ১৩৫১ সাল থেকে
খ. ১৬০১ সাল থেকে
গ. ১৭০১ সাল থেকে
ঘ. ১৮০১ সাল থেকে
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যের প্রাচীনতম শাখা কোনটি
ক. কাব্য
খ. প্রহসন
গ. ছোটগল্প
ঘ. ছন্দ
উত্তরঃ ক

প্রশ্নঃ বাংলা ভাষার প্রাচীন নিদর্শন-
ক. পুঁথি সাহিত্য
খ. খনার বচন
গ. নাথ সাহিত্য
ঘ. চর্যাপদ
উত্তরঃ ঘ

প্রশ্নঃ ড. মুহম্মদ এনামূল হক মধ্যযুগকে কয়টি ভাগে ভাগ করেছেন?
ক. দুটি
খ. তিনটি
গ. চারটি
ঘ. পাঁচটি
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ আধুনিক যুগের সূত্রপাত কোন সময় থেকে?
ক. ১৯০১ সাল থেকে
খ. ১৮০১ সাল থেকে
গ. ১২০১ সাল থেকে
ঘ. ১৬০১ সাল থেকে
উত্তরঃ খ

প্রশ্নঃ হরপ্রসাদ শাস্ত্রী কবে সম্পাদিত আকারে চর্যাপদ প্রকাশ করেন?
ক. ১৯০৭ সালে
খ. ১৯০৯ সালে
গ. ১৯১৬ সালে
ঘ. ১৯২৩ সালে
উত্তরঃ গ

প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যের আদি গ্রন্থ কোনটি?
ক. শ্রীকৃষ্ণ বিজয়
খ. শ্রীকৃষ্ণ কীর্তন
গ. শূন্যপূরাণ
ঘ. চর্যাপদ
উত্তরঃ ঘ

আরো পড়ুন: