প্রশ্নঃ মঙ্গলকাব্যের উপজীব্য কি?
উত্তরঃ ধর্মবিষয়ক আখ্যান। দেবদেবীর গুনগান মঙ্গলকাব্যর উপজীব্য। স্ত্রী দেবীদের প্রধান্য এবং মনসা ও চন্ডীই এদের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ।
প্রশ্নঃ মঙ্গলকাব্য প্রধানত কত প্রকার ও কি কি?
উত্তরঃ মঙ্গল কাব্য প্রধানতঃ দু’প্রকার। যথা-

(ক) পৌরাণিক মঙ্গলকাব্য ও (খ) লৌকিক মঙ্গলকাব্য।
প্রশ্নঃ উল্লেখ্যযোগ্য পৌরাণিক মঙ্গলকাব্য কি কি?
উত্তরঃ অন্নদামঙ্গল, কমলামঙ্গল, দূর্গামঙ্গল।
প্রশ্নঃ উল্লেখযোগ্য লৌকিক মঙ্গলকাব্য কি কি?

উত্তরঃ মনসা মঙ্গল, চন্ডীমঙ্গল, কালিমঙ্গল, গৌরীমঙ্গল (বিদ্যাসুন্দরী), সারদামঙ্গল প্রভৃতি।
প্রশ্নঃ সর্বাপেক্ষা প্রাচীনতম মঙ্গলকাব্য ধারা কোনটি?
উত্তরঃ মনসামঙ্গল।
প্রশ্নঃ সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় মনসামঙ্গল কাহিনী কোনটি?
উত্তরঃ চাঁদ সাগরের বিদ্রোহ ও বেহুলার সতীত্ব কাহিনী।
প্রশ্নঃ মনসামঙ্গল কাব্য কোন দেবীর কাহিনী নিয়ে রচিত?
উত্তরঃ দেবী মনসা’র কাহিনী।

প্রশ্নঃ মনসামঙ্গলের উল্লেখযোগ্য চরিত্র কি?
উত্তরঃ মনসাদেবী, চাঁদ সুন্দর, বেহুলা, লক্ষ্মীন্দর।
প্রশ্নঃ মনসামঙ্গলের আদি কবি কে?
উত্তরঃ কানা হরিদত্ত।

প্রশ্নঃ কোন রাজার সময় মনসা মঙ্গল কাব্য রচিত হয়?
উত্তরঃ সুলতান হুসেন শাহের সময়ে।
প্রশ্নঃ মনসামঙ্গলের অন্যতম কবি নারায়ন দেবের জন্মস্থান কোথায়?
উত্তরঃ বর্তমান কিশোরগঞ্জ জেলায়।
প্রশ্নঃ কবি নারায়ন দেবের কাব্যের নাম কি?
উত্তরঃ পদ্মপুরাণ।

প্রশ্নঃ মনসামঙ্গলের অন্যতম কবি বিজয় গুপ্তের জন্ম স্থান কোথায়?
উত্তরঃ বরিশাল জেলার বর্তমান গৈলা গ্রামে এবং প্রাচীন নাম ফুলশ্রী।
প্রশ্নঃ মনসা বিজয়’ কাব্যগ্রন্থের রচিয়তা কে?
উত্তরঃ বিপ্রদাস পিপিলাই, ১৪৯৫ সালে প্রকাশিত হয়।
প্রশ্নঃ মনসামঙ্গলের সুকণ্ঠ গায়ক হিসেবে কোন কবির বিশেষ খ্যাতি ছিল?
উত্তরঃ দ্বিজ বংশীদাস।

প্রশ্নঃ দ্বিজ বংশীদাস কোথায় জন্মগ্রহন করেন?
উত্তরঃ কিশোরগঞ্জ জেলার পাতুয়ারী গ্রামে।
প্রশ্নঃ মনসামঙ্গলের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি ক্ষেমানন্দের উপাধি কি ছিল?
উত্তরঃ কেতকা দাস।

প্রশ্নঃ চন্ডীমঙ্গল কাব্যের আদি কবির নাম কি?
উত্তরঃ মানিক দত্ত।
প্রশ্নঃ কোন শতকে চন্ডীমঙ্গল কাব্যের সর্বাধিক প্রসার ঘটে?
উত্তরঃ ষোড়শ শতকে।
প্রশ্নঃ চন্ডীমঙ্গল কাব্যর রচনাকাল কত সময় পর্যন্ত বিস্তৃত?
উত্তরঃ ষোড়শ থেকে আঠার শতক পর্যন্ত।

প্রশ্নঃ চন্ডীমঙ্গল কাব্য ধারার সর্বশ্রেষ্ট কবি কে?
উত্তরঃ কবি কবিকঙ্কন মুকুন্দ রাম চক্রবর্তী।
প্রশ্নঃ কবি মুকুন্দ রাম কোথায় জন্মগ্রহন করেন?
উত্তরঃ বর্ধমান জেলার দামুন্যা গ্রামে।
প্রশ্নঃ কবি মুকুন্দ রাম কার সভাসদ ছিলেন?
উত্তরঃ মেদিনীপুর জেলার অড়বা গ্রামের জমিদার রঘুনাথের।

প্রশ্নঃ মুকুন্দ রামকে কে কেন কবিকঙ্কন’ উপাধি দেন?
উত্তরঃ জমিদার রঘুনাথ শ্রী শ্রী চন্ডীমঙ্গল কাব্য রচনার জন্য।
প্রশ্নঃ মুকুন্দ রামের চন্ডীমঙ্গল কাব্যর অন্যান্য নাম কি কি?
উত্তরঃ অভয়ামঙ্গল, অধিকামঙ্গল, গৌরিমঙ্গল, চন্ডীমঙ্গল, প্রভৃতি।
প্রশ্নঃ চন্ডীমঙ্গলের উল্লেখ্যযোগ্য কবির নাম কি?
উত্তরঃ দ্বিজ রামদেব, মুক্তারাম সেন, হরিরাম, ভবানীশঙ্কর দাস, অকিঞ্চন চক্রবর্তী প্রমুখ।

প্রশ্নঃ ধর্মমঙ্গল কাব্যের কাহিনী কয়টি এবং কি কি?
উত্তরঃ দুটি। যথাঃ (ক) রাজা হরিশ্চন্দ্রের কাহিনী এবং (খ) লাউসেনের কাহিনী।
প্রশ্নঃ ধর্মমঙ্গল কাব্যের আদি কবি কে?
উত্তরঃ ময়ূর ভট্ট।
প্রশ্নঃ হাকন্দপুরান’ কার রচিত কাব্য গ্রন্থ?
উত্তরঃ ময়ূর ভট্ট।

প্রশ্নঃ শ্যাম পন্ডিত কে ছিলেন?
উত্তরঃ ধর্মমঙ্গলের অন্যতম কবি।
প্রশ্নঃ নিরঞ্জন মঙ্গল কার কাব্য গ্রন্থের নাম?
উত্তরঃ শ্যাম পন্ডিত।
প্রশ্নঃ সা’ বারিদ খান রচিত মঙ্গল কাব্যর নাম কি?
উত্তরঃ বিদ্যাসুন্দর।

প্রশ্নঃ রাম প্রসাদ সেনকে কে কবিরঞ্জন’ উপাধি প্রদান করেন?
উত্তরঃ নবদ্বীপের রাজা কৃষ্ণচন্দ্র।
প্রশ্নঃ রাম প্রসাদ সেনের কাব্য গ্রন্থের নাম কি?
উত্তরঃ কবিরঞ্জন।
প্রশ্নঃ অষ্টাদশ শতক বা মধ্যযুগের শ্রেষ্ঠ কবি হিসেবে কোন কবি সুপরিচিত?
উত্তরঃ ভারতচন্দ্র রায় গুনাকর।

প্রশ্নঃ অন্নদামঙ্গল কাব্যগ্রন্থের রচয়িতা কে?
উত্তরঃ ভারত চন্দ্র।
প্রশ্নঃ ভারতচন্দ্র কে কে রায় গুণাকর’ উপাধি প্রদান করেন?
উত্তরঃ নবদ্বীপের রাজা কৃষ্ণচন্দ্র।
প্রশ্নঃ ভারতচন্দ্র কার সভাকবি ছিলেন?
উত্তরঃ নবদ্বীপের রাজা কৃষ্ণচন্দ্র।

প্রশ্নঃ ভারতচন্দ্রের রায় রচিত মঙ্গল কাব্যর নাম কি?
উত্তরঃ অন্নদামঙ্গল কাব্য।
প্রশ্নঃ ভারতচন্দ্র রায় গুণাকরের জন্মস্থান কোথায়?
উত্তরঃ হাওড়া জেলার পেঁড়ো (পান্তুয়া) গ্রামে।
প্রশ্নঃ কোন কবির জীবানাবসানের মাধ্যমে মধ্যযুগের অবসান হয়েছে?
উত্তরঃ কবি ভারত চন্দ্র রায় গুনাকর।

আরো পড়ুন: