জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল দেশের কোনো মানুষ আশ্রয়হীন থাকবে না। পিতার সেই স্বপ্ন পূরণে মুজিববর্ষ উপলক্ষে সারাদেশের গৃহহীন-ভূমিহীনদের ‘স্বপ্নের ঠিকানা’ উপহার দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রায় ৭০ হাজার ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবার পেলেন আধাপাকা বাড়ি।

২৩ জানুয়ারি সকালে ৬৬ হাজার ১৮৯টি পরিবারকে ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হয়। একযোগে এত ভূমিহীন-গৃহহীন মানুষকে জমি ও ঘর করে দেওয়ার ঘটনা বিশ্বে এটিই প্রথম। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এবং ৪৯২টি উপজেলা প্রান্ত ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে সংযুক্ত হয় অনুষ্ঠানে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালের ২০ ফ্রেবুয়ারি নোয়াখালী জেলার বর্তমানে লক্ষ্মীপুরের চরপোড়াগাছ গ্রাম পরিদর্শন করেন। সেখানে তিনি গৃহহীন মানুষের জন্য গৃহ নির্মাণের নির্দেশ দেন। তারই নির্দেশে স্বাধীন বাংলাদেশে প্রথম শুরু হয় গৃহহীন পুনর্বাসন কার্যক্রম।

পরে ১৯৭২ সালের ৩ জুন বাংলাদেশ জাতীয় সমবায় ইউনিয়ন আয়োজিত সমবায় সম্মেলনের বক্তব্যে অঙ্গীকার করেছিলেন, ‘আমার দেশের প্রতিটি মানুষ খাদ্য পাবে, আশ্রয় পাবে, শিক্ষা পাবে, উন্নত জীবনের অধিকারী হবে। এই হচ্ছে আমার স্বপ্ন।’

স্বপ্ন পূরণের পথে জাতির পিতার অগ্রযাত্রা থমকে যায় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের কালো রাতে। তার সেই স্বপ্ন পূরণকেই ব্রত হিসেবে নিয়ে কাজ করে চলেছেন তারই কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

১৯৯৬ সালে তার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে জাতির পিতার অসমাপ্ত জনবান্ধব ও উন্নয়নমূলক কার্যক্রমগুলো পুরনায় চালু করেন। আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় ১৯৯৭ থেকে ২০২০ পর্যন্ত ৩ লাখ ২০ হাজার ৫২টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসিত করা হয়েছে।

সংগৃহীত : Zakir's BCS specials

আরো পড়ুন: