মুনীর চৌধুরী

জন্ম : ২৫ নভেম্বর , ১৯২৫ সালে । পৈতৃক নিবাস নোয়াখালী।

মুনীর চৌধুরী শহীদ বুদ্ধিজীবি হিসেবে পরিচিত । তিনি ভাষা আন্দোলন বিষয়ক কবর নাটকটি ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে থাকা অবস্থায় সাংবাদিক ও প্রাবন্ধিক রণেশ দাশগুপ্তের অনুরোধে লিখেন ও সেখানে রাজবন্দীদের দ্বারা নাটকটি অভিনীত হয়েছিল।

১৯৬৬ সালে সিরাক-ই-ইমতিয়াজ খেতাব লাভ করেন ও ১৯৭১ এর মার্চ মাসে অসহযোগ আন্দোলনের সমর্থনে এই খেতাব বর্জন করেন । ১৪ ডিসেম্বর , ১৯৭১ সালে তিনি নিখোঁজ হন ।

এখনো amarStudy অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপটি ডাউনলোড না করে থাকলে গুগল প্লে-স্টোর থেকে অ্যাপটি ইন্সটল করতে এখানে যানঃ Download Now. অ্যাপটি বিসিএস’সহ প্রায় সব রকমের চাকুরির প্রস্তুতির সহায়ক।

গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নাবলী – মুনীর চৌধুরী :

০১ । ১৯৫২ সালের ২১ ফেবরুয়ারী পটভূমিতে রচিত ‘ কবর ’ নাটকের লেখক কে ? = মুনীর চৌধুরী ।

০২ । রক্তাক্ত প্রান্তর নাটকটি কোন ধরনের ? = ঐতিহাসিক ।

০৩ । ভাষা আন্দোলনভিত্তিক মুনীর চৌধুরীর নাটক কোনটি ? = কবর ।

০৪ । ‘ রক্তাক্ত প্রান্তর ’ নাটকটির পটভুমি কি ছিল ? = পানিপথের ৩য় যুদ্ধ ।

০৫ । ‘ মুখরা রমনী বশীকরণ ’ নাটকটি কার অনূদিত ? = মুনীর চৌধুরী ।

০৬ । ‘ রক্তাক্ত প্রান্তর ’ নাটকটির রচয়িতা কে ? = মুনীর চৌধুরী ।

০৭ । শেক্সফিয়রের ‘ টেমিং অব দি শ্রু ’ বঙ্গানুবাদ করেছেন কে ? = মুনীর চৌধুরী ।

০৮ । কবর নাটকটি প্রথম অভিনীত হয় কোথায় ? = ঢাকা কেন্দীয় কারাগারে ।

০৯ । ‘ রক্তাক্ত প্রান্তর ’ কোন ধরনের গ্রন্থ ? = নাটক ।

১০ । ‘ রুপার কৌটা ’ নাটকটি কার অনূদিত ? = মুনীর চৌধুরী ।

১১ । মুনীর চৌধুরীর ‘ মীর মনিস ’ কোন ধরনের গ্রন্থ ? = প্রবন্ধ ।

১২ । ‘ কবর ’ কোন শ্রেণীর গ্রন্থ ? = নাটক ।

১৩ । মুনীর চৌধুরী রচিত ‘ কেউ কিছু বলতে পারে না ’ একটি = অনুবাদ নাটক।

আরো পড়ুন:

Leave a Comment

Your email address will not be published.

You're currently offline !!

error: Content is protected !!